বেগুন ভর্তা

উইকিবই থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

রন্ধনপ্রণালী সূচীপত্র | উপকরণ সমূহ | রন্ধনপ্রণালী | প্রস্তুতপ্রণালী

বেগুন ভর্তা
Baingan Ka Bhurta.JPG
রন্ধনপ্রণালী বিভাগ বেগুন রন্ধনপ্রণালী
পরিবেশন ৩-৪ জন
তৈরির সময় ১৫ মিনিট
কষ্টসাধ্য


বেগুন ভর্তা হল একপ্রকার বাঙালি খাবার। এতে বেগুন আগুনের আঁচে পুড়িয়ে তেল, লবণ, পেয়াজ, মরিচ সহ অন্যন্য উপদান সহযোগে তৈরি একশ্রেণীর খাদ্য। বেগুন ভর্তা ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের নিজস্ব খাদ্যভাসের একটি। এটা প্রাথমিকভাবে বেগুন মিনমিনে মিহি করে প্রস্তুত করা একটি নিরামিষ খাবার। এটি কাঠকয়লা বা সরাসরি আগুনের ওপরে ভাজা হয়। এর ফলে এই ভর্তায় ধোঁয়াটে গন্ধ থাকে। প্রথাগতভাবে, এ খাবার প্রায়ই একটি দেশীয় খাবারের সঙ্গে খাওয়া হয়( স্পেশালভাবে পান্তা ও রুটি) । পাকিস্তান ও বাংলাদেশে বেগুন ভর্তা একটি জনপ্রিয় রন্ধনপ্রণালীর অংশ। যেখানে ভারতে এটা বিহার, পশ্চিম বঙ্গ, আসাম, উড়ির্ষা সহ অনেক রাজ্যের জনপ্রিয় অংশ।

উপকরনসমূহ[সম্পাদনা]

বেগুন ভর্তা করতে প্রয়োজনীয় উপকরণগুলো হলঃ

প্রস্তুতপ্রণালী[সম্পাদনা]

প্রথমে চুলা জ্বালিয়ে দিয়ে গোটা বেগুন আগুনের উপর ধরতে হয়। এসময় বেগুনকে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে পোঁড়াতে হয় যেন সমভাবে পুঁড়তে পারে। বেগুন পোঁড়াতে গেলে দেখা যাবে উপরের ত্বক কালচে হয়ে বেগুন নরম হয়ে গেলে চুলা বন্ধ করতে হয়। এবার কালো ত্বক তুলে ফেলতে হয়। এ পর্যায়ে কাচা মরিচ কুচি ও পেঁয়াজ কুচি তেলে হালকা আঁচে ভাজা ভাজা করে নিতে হয়। এছাড়া পোঁড়া মরিচও ব্যবহার করা হয়। এবার একটি বাটিতে মরিচ, পেঁয়াজ চটকে নিয়ে পোঁড়া বেগুন মাখাতে হবে। অনেকে বেগুন ভর্তায় ধনিয়া পাতা, সিদ্ধ ডিম, টমেটো পোঁড়া ইত্যাদি ব্যবহার করেন।

পরিবেশন প্রক্রিয়া[সম্পাদনা]

বাঙালীরা সাধারনত খাবারের সাথে তরকারী হিসাবে এটি ব্যবহার করে। এছাড়া পহেলা বৈশাখ সহ অন্যন্য কিছু বাঙালী উৎসবে বেগুন ভর্তা পরিবেশিত হয়।

বিভিন্নতা[সম্পাদনা]

গ্যালারী[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]