উইকিশৈশব:রাসায়নিক মৌল/ক্যালসিয়াম

উইকিবই থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
পর্যায় সারণীতে ক্যালসিয়ামের অবস্থান
পর্যায় সারণীতে ক্যালসিয়ামের প্রতীক

এটা দেখতে কেমন লাগে?[সম্পাদনা]

ক্যালসিয়াম একটি নরম ও ধূসর ধাতু। যখন এটি জ্বলে তখনএকটি হলুদ-লাল শিখা দেখতে পাবে। যখন এটি বাতাসের সংস্পর্শে আসে, তখন এটি একটি ধূসর-সাদা আবরণ তৈরি করে কারণ এটি বাতাসের অক্সিজেনের সাথে বিক্রিয়া করে ক্যালসিয়াম অক্সাইড (চুন) এর আবরণ তৈরি করে।

এটি দৃঢ়ভাবে ক্ষারীয় ধাতু।এটি শরীরের কোনো তরলের(যেমন:ঘাম)সঙ্গে প্রতিক্রিয়াশীল। ক্যালসিয়াম ধাতু এটি উন্মুক্ত মাংস পোড়াতে সক্ষম।এজন্য কখনো এটাকে স্পর্শ করবে না।

এটা কিভাবে আবিষ্কৃত হয়েছিল?[সম্পাদনা]

প্রাচীন রোমান সময় থেকে ক্যালসিয়াম ধাতুটি পরিচিত। রোমানরা চুল্লিতে চুনাপাথর গরম করে ক্যালসিয়াম অক্সাইড তৈরির উপায় আবিষ্কার করেছিল।তবে,১৮০৮ সালের আগে এটিকে কেউ বিশুদ্ধ করতে পারিনি । স্যার হামফ্রে ডেভি ১৮০৮ সালে প্রথম বিশুদ্ধ ক্যালসিয়াম আবিষ্কার করেন।

এর নাম কোথা থেকে এসেছে?[সম্পাদনা]

ক্যালসিয়াম এর নাম ক্যালসিস থেকে এসেছে।ক্যালসিস একটি ল্যাটিন শব্দ যার অর্থ হলো চুন।

তুমি কি জানো?

  • ভেজা ক্যালসিয়াম হাইড্রোক্সাইড বাতাসের সাথে একত্রিত হলে এটি শক্ত ক্যালসিয়াম কার্বনেটে পরিণত হয়। এই রাসায়নিক বিক্রিয়াই সিমেন্টকে শক্ত করে তোলে।
  • ক্যালসিয়াম প্রাণীদের দেহের মধ্যে সবচেয়ে সাধারণ ধাতু।
  • স্ট্যালাকটাইট এবং স্ট্যালাগমাইটগুলি প্রাথমিকভাবে ক্যালসিয়াম কার্বনেট দিয়ে তৈরি।

এটা কোথায় পাওয়া যায়?[সম্পাদনা]

এর ব্যবহার কি?[সম্পাদনা]

ক্যালসিয়াম আমাদের শরীরের সঞ্চালনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটি শক্তিশালী হাড় এবং দাঁত তৈরি করতে সাহায্য করে। এটি আমাদের পেশী এবং মস্তিষ্কের কোষগুলিকে কাজ করার শক্তির যোগান দেয়।

এটা কি বিপদজনক?[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]