উইকিশৈশব:বিলুপ্ত পাখি/সওয়ারি কবুতর

উইকিবই থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
Ectopistes migratorius (passenger pigeon).jpg

সওয়ারি কবুতর বা যাত্রিক পায়রা বা বন্য পায়রার বিজ্ঞানসম্মত নাম এক্টোপিস্টেস মাইগ্রেটরিয়াস। এটি পায়রার একটি লুপ্ত প্রজাতি।

স্বভাব[সম্পাদনা]

গতি[সম্পাদনা]

এরা খুব দ্রুত গতি সম্পন্ন হয় এবং ১০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা (৬২ মাইল প্রতি ঘন্টা) বেগে উড়তে পারে।

খাদ্যাভ্যাস[সম্পাদনা]

শরৎ, শীত এবং বসন্ত কালে এরা বীচবাদাম, ওকবাদাম এবং চেস্টনাট খেত আবার গ্রীষ্মে, তারা আঙ্গুর এবং চেরির মতো বেরি জাতীয় ফল খেত।

ঝাঁক[সম্পাদনা]

সওয়ারি কবুতর সবসময় ঝাঁকে থাকতে পছন্দ করে।

ডিম[সম্পাদনা]

মনে করা হয় এই পায়রা একবারে একটি ডিম পাড়তো। ডিমের আকৃতি লম্বাটে প্রকৃতির এবং সাদা রংয়ের।

বিবরণ[সম্পাদনা]

প্রাপ্তবয়স্ক পায়রার ওজন ২৬০ থেকে ৩৪০ গ্রামের মধ্যে। প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ এবং মহিলা দেখতে আলাদা। পুরুষ পায়রা ৩৯০ থেকে ৪১০ মিলিমিটার লম্বা এবং দেহ ধূসর বর্ণ সহ নীলাভ ধূসর বর্ণের ডানা ছিল। তাদের ঘাড়ে কিছু চিত্রাভ (ইরিডিসেন্ট) পালকের উপস্থিতি ছিল, এগুলি বর্ণ এটির উপর কীভাবে আলো পড়ছে তার উপর নির্ভর করে উজ্জ্বল ব্রোঞ্জ বেগুনি বা সোনালি-সবুজ হতো।

মহিলা পায়রার আকৃতি ছোট ছিল, যা ৩৮০ থেকে ৪০০ মিলিমিটার লম্বা। তাদের বেশ গাঢ় বাদামী-ধূসর পালক ছিল এবং তাদের ঘাড়ের দৈর্ঘ্য কম ছিল। ডানাগুলো বেশ দাগকাটা ছিল।

কিশোর পাখি দেখতে অনেকটা স্ত্রীদের মতো হলেও এদের ঘাড় বা পাখায় কোনো দাগ ছিল না।

বিস্তৃতি[সম্পাদনা]

Map-Ectopistes-migratorius.png

এদের পূর্ব উত্তর আমেরিকায় পাওয়া যেত। প্রজনন করার সময়, এদের বিচরণ পরিসরটি ছোট হয়ে যেত এবং স্বাভাবিক পরিসরের কিছুটা পূর্বদিকে সরে আসতো।

অবলুপ্তি[সম্পাদনা]

মার্থা ছিল শেষ যাত্রিক পায়রা বা সওয়ারি কবুতর। এটি ১০০ বছরেরও বেশি আগে ১৯১৪ সালের ১লা সেপ্টেম্বর মারা যায়।

স্থানীয় আমেরিকানরা এদের শিকার করত, তবে ইউরোপীয়দের আগমনে এর সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। পায়রার মাংস একটি সস্তার খাদ্য হিসাবে বিবেচিত হত, তাই তাদের বিপুল পরিমাণে শিকার করা হত। এছাড়াও, বন জঙ্গল পরিষ্কার করায় এদের প্রাকৃতিক আবাসস্থল হারিয়ে যায়।