কর্মী বিনিময় কর্মসূচী/ধরিত্রী পল্লী তথ্য কেন্দ্র

উইকিবই থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ধরিত্রী পল্লী তথ্য কেন্দ্র মোংলা, বাগেরহাট পরিদর্শনের তারিখ: ০৮ নভেম্বর থেকে ১০ নভেম্বর ২০০৯

যেসকল তথ্যকর্মী পরিদর্শন করেছেন যিনি তত্ত্বাবধান করেছেন

আবু জুবায়ের দিগন্তের ডাক পল্লীতথ্য কেন্দ্র মাইজদি, নোয়াখালী পূর্নিতী ইজারদার ধরিত্রী পল্লী তথ্য কেন্দ্র মোংলা, বাগেরহাট

১. টেলিসেন্টার পরিচিতি K. টেলিসেন্টারের শুরুর তারিখ: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৫ ইং L. যেভাবে শুরু হয়েছিল: ২০০৫ সালে ডি.নেট গবেষণার জন্য বাগেরহাট, নীলফামারী, নেত্রকোনা ও নোয়াখালী জেলায় ৪টি পল্লীতথ্য কেন্দ্র স্থাপন করে। বাগেরহাটে মংলা উপজেলায় ১ম পল্লীতথ্য কেন্দ্রটি স্থাপিত হয়। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে স্থানীয় জনসাধারণের জন্য তথ্য প্রাপ্তির সুযোগ সৃষ্টিতে পলীলতথ্য কেন্দ্রের কার্যকারিতা, দরিদ্র ও প্রামিত্মক জনগণের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে তথ্যের প্রভাব ইত্যাদি বিষয়ে প্রকৃত উত্তর খুঁজে পেতে এ গবেষণাটি পরিচালিত হয়। M. প্রাথমিকভাবে যারা শুরু করেছিল: প্রাথমিক পর্যায়ে ডি.নেট ও ধরিত্রী সমাজ কল্যাণ সংঘ যৌথভাবে পল্লীতথ্য কেন্দ্রটি স্থাপন ও পরিচালনা শুরু করে। পরবর্তীতে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে ডি.নেট বাস্তবায়িত অবলম্বন ১ ও অবলম্বন ২ প্রকল্পের কার্যক্রম মংলাতে এ পল্লীতথ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে সম্প্রসারণ করা হয়। ২০০৭ সালে মাইক্রোসফটের আর্থিক সহায়তায়, ডি.নেট বাস্তবায়িত ক্লিক (কমিউনিটি ফর লানিং ইনফরমেশন কমিউনিকেশন টেকনোলজি) প্রকল্পের কাজ এ পল্লীতথ্য কেন্দ্রে যুক্ত করা হয়। বর্তমানে ধরিত্রী সমাজ কল্যাণ সংঘ, ডি.নেটের কারিগরী সহযোগিতায় পল্লীতথ্য কেন্দ্রটি পরিচালনা করছে। N. এই স্থানে টেলিসেন্টার নির্বাচনের কারন: পল্লীতথ্য কেন্দ্রের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য পদ্ধতি অনুসারে বাংলাদেশের চারটি প্রান্তকে বেছে নেয়া হয়। চারটি এলাকা নির্বাচনের সময় দক্ষিণ-পশ্চিমের মংলাকে নানানদিক বিশ্লেষণ করে উপযুক্ত মনে হয়। এছাড়াও এ এলাকার হলদিবুনিয়া গ্রামে ২০০৪ সালে ডি.নেট প্রথম হেল্পলাইনের (মোবাইল ফোনের মাধ্যমে গ্রামের মানুষের জীবন-জীবিকার তথ্য প্রাপ্তির সুযোগ) কার্যকারিতা পরীক্ষা করে। যা পরবর্তীতে পল্লীতথ্য কেন্দ্র স্থাপনের জন্য এ এলাকাকে বেছে নিতে সহায়ক হয়। O. তথ্যকেন্দ্রে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি

যন্ত্রপাতির নাম সংখ্যা ডেস্কটপ ০৯ টি ল্যাপটপ ১ টি ডিজিটাল ক্যামেরা ২ টি প্রিন্টার ২টি স্পিকার, ২ টি হেডফোন ১ টি মডেম ১ টি

P. তথ্যকেন্দ্রের ইন্টারনেট সংযোগ: ইন্টারনেট সংযোগ আছে এবং তা গ্রামীন ফোন জিপি মোডেম। Q. তথ্যকেন্দ্রে ব্যবহৃত অফলাইন তথ্য ও সিডি: জীয়ন সিডি, বিভিন্ন প্রকার শিক্ষামুলক ভিডিও সিডি যেমনঃ বাল্য বিবাহ, যৌতুক, কুমড়ো চাষ, মোম তৈরি ইত্যাদি। শিশুদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন প্রকার শিক্ষা মুলক কার্টুন ছবি সহ বিভিন্ন প্রকার এ্যানিমেশন, যেমন : মিনা কার্টুন সিডি , জ্যাম ও জেলি তৈরি সিডি এবং নারী ও নকশা সিডি, মনি সিডি।

২. টেলিসেন্টার কর্মী পরিচিতি

K. তথ্যকেন্দ্রে কর্মরত কর্মীদের তালিকা ইাম পদবী কি কাজ করছে? মিতা বৈরাগী নির্বাহী পরিচালক ব্যবস্থাপনা ,পরিকল্পনা প্রভাষ চন্দ্র বিশ্বাস উপদেষ্টা প্রতিষ্ঠানের ভাল মন্দ দেখা বাবুল সরকার কোঅর্ডিনেটর পরিকল্পনা প্রণয়ন,মনিটরিং, অফিস ব্যবস্থাপনা , হিসাব রক্ষন কল্পনা সেন্টার ম্যানেজার তথ্যসেবা, প্রশিক্ষণ, আনুষঙ্গিক সেবা, পূর্নিতী ইজারদার মোবাইল লেডি তথ্যসেবা,আনুষঙ্গিক সেবা,রিপোর্টিং

L. কর্মীদের নির্বাচন প্রক্রিয়া  পূর্নিতী ইজারদার: তথ্য কেন্দ্রে প্রথমে কম্পিউটার প্রশিক্ষণে ভর্তি হন এবং কোর্স শেষ করেন। পরবর্তীতে টেলিসেন্টারে লোকের প্রয়োজন হলে তাকে চাকরিতে নিয়ে নেয় এবং ঢাকা ডি নেট থেকে ভাল প্রশিক্ষণ দেয়। M. তথ্যকর্মীর প্রতিদিনের কাজ গময় সকালে ১. হাজিরা খাতায় সই ২. তথ্যসেবা ও আনুষঙ্গিক সেবা দুপুরে ১. প্রশিক্ষণ ২. তথ্যসেবা ও আনুষঙ্গিক সেবা বিকেলে ১. ফিল্ড ওয়ার্ক ও তথ্য সেবা ২. অফিসের অনুষঙ্গিক সেবা N. তথ্যকর্মীর ওয়েবসাইট ব্যবহার ওয়েবসাইটের তালিকা ব্যবহারের কারন www.google.com কোন কিছু খুজে বের করার জন্য www.yahoo.com মেইল চেক করার জন্য www.gmail.com মেইল চেক করার জন্য www.dvloterry.state.gov ডিভি পাঠানোর জন্য www.nu.edu.bd জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা সমূহের ফলাফল জানার জন্য www.grameentathya.ning.com ব্লগ লেখার জন্য www.result.educationboard.gov.bd এস এস সি ও এইচ এস সি ফলাফলের জন্য www.bnwebtools.sourceforge.net কোন টেক্সট কে ইউনিকোডে কনভার্ট করার জন্য www.facebook.com বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য O. তথ্যকর্মীর ব্লগ কিংবা সামাজিক ওয়েবসাইটে অবস্থান: তিনি ইহাহু, স্কাইপ, বিবিসি জানালা, গ্রামীন তথ্য কেন্দ্র ব্লগ এর সদস্য। P. উল্ল্যেখযোগ্য ঘটনা যা তথ্যকর্মীকে কাজ করতে উৎসাহিত করে  পূর্নিতী ইজারদার: তিনি এই কাজ ছাড়াও হস্তজাত শিল্পের কাজের সাথে জড়িত, কিন্তু যখন তথ্যকেন্দ্রের মাধ্যমে জনসাধারণকে সঠিক তথ্যটি দেন তখন তারা যে আনন্দ প্রকাশ করে তা তাকে এ কাজে উৎসাহিত করে। Q. তথ্যকর্মীর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা  পূর্নিতী ইজারদার: তার এবং সংস্থার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হল, কেন্দ্রটিকে দেশের সেরা কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা। কম্পিউটার জ্ঞানে নিজেকে আরো সমৃদ্ধ করা। R. তথ্যকর্মীর ব্যক্তিগত জীবন  পূর্নিতী ইজারদার: বাড়ি চাদঁপাই এর আরাজি মাকোড়ঢোন। তিনি মোংলা কলেজ হতে মানবিক বিভাগে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করে টেলিসেন্টারে কাজ করছেন। পরিবারে তার এক ভাই ও এক বোন সহ মা বাবা রয়েছে।

৩. টেলিসেন্টার পরিচালিত এলাকা সম্পর্কে K. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার ভৌগলিক অবস্থান: ভৌগলিক অবস্থান দিক থেকে এটি বাগেরহাট জেলার মংলা উপজেলার কেন্দ্রস্থলে মংরা পৌরসভায় অবস্থিত। মংলা সমুদ্র বন্দর পার হয়ে খেয়া পারের মাধ্যমে পশুর নদী পার হতে হয়। এরপর মংলা বাজার পার হয়ে শেরাবুনিয়া গ্রামের বটতলায় অত্র কেন্দ্র অবস্থিত। এলাকায় প্রায় ১০,০০০ লোকের বসবাস। L. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার জনগণের পেশা: জনগনের প্রধান পেশা মৎসচাষ ও চিংড়ি প্রক্রিয়াজাতকরন । M. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান: সরকারী প্রতিষ্ঠান ঃ একটি কলেজ, ৫ টি স্কুল এবং মাদ্রাসা। বেসরকারী প্রতিষ্ঠানঃ পূবালী ব্যাংক, মাধ্যমিক স্কুল, মাদ্রাসা, ব্র্যাক আশা প্রশিকা সহ দেশের বড় সকল এনজিও এর শাখা অফিস রযেছে , এর মধ্যে উল্লেখvাগ্য হল ওয়ার্ল্ড ভিশন, গ্রামীন শক্তি। N. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার গুরুত্বপূর্ণ কিংবা উল্ল্যেখযোগ্য স্থাপনা বা ঘটনা: এলাকায় গুরুতপুর্ণ স্থাপনার মধ্যে রয়েছে সুন্দরবন, মংলা সমুদ্র বন্দর, ক্যাথলিক মিশন, চন্দ্র মহল ও সামুদ্রিক যাদুঘর।

৪. টেলিসেন্টারের মাধ্যমে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার কৌশল K. এলাকার জনগণকে তথ্যকেন্দ্রের সেবার সাথে সম্পৃক্ত করার জন্য উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচী উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচীর নাম বিবরণ পোষ্টার লিফলেট ব্যানার আমাদের কেন্দ্রর প্রশিক্ষনের বিবরন দিয়ে পোষ্টার, ব্যানার করা হয় যা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে লাগানো হয়। লিফলেট সমূহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করা হয়। বিভিন্ন স্কুল কলেজে গিয়ে উদ্ভুদ্ধ করা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ছাত্র শিক্ষকদের সাথে মত বিনিময়ের মাধ্যমে সকলকে অবহিত করা। L. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার এনজিও, সরকারী প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা: বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরি করা, এনজিও কর্মীরা বিভিন্ন ওয়েব সাইট ব্যবহার করে, শিক্ষা প্রতিষ্টান সমুহ বিভিন্ন সময় তাদের সরকারী ফরম সেন্টারের মাধ্যমে সংগ্রহ করে। M. এলাকার ক্ষুদ্র ব্যসায়ীদের সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা : এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা তাদের কাছ থেকে সেবা গ্রহণ করে । যেমনঃ কোন ভাবে মাছ চাষ করলে বেশি লাভ হবে, সবজি চাষ, মুরগীর ফার্ম করা। N. এলাকার নারীদের সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা : তারা কমিপ্টার প্রশিক্ষণ, ছবি তোলা, স্বাস্থ্য সেবা এবং বাড়িতে সবজি চাষ করে কিভাবে বেশি টাকা আয় করা যায় সে বিষয়ে সেবা গ্রহণ করে। O. এলাকার শিশু ও কিশোরদের সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা: এলাকার শিশু কিশোররা এখানে এসে কম্পিউটারে গেম খেলে, কার্টুন ছবি দেখে। শিশুরা শিক্ষামূলক ভিডিও দেখে।

৫. টেলিসেন্টার ব্যবস্থাপনা K. দৈনিক কর্মসময়: ৯ টা থেকে ৫ টা L. কর্মীদের দায়িত্ব বন্টন: সকালে অফিসে এসে প্রথমে হাজিরা খাতায় সই করা, মেইল একাউন্টে ঢুকে মেইল চেক করা গুরুত্বপূর্ণ মেইল সমূহের উত্তর দেওয়া। প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ প্রদান। তথ্য সেবা ও আনুষঙ্গিক সেবা প্রদান। বিকেলে কেন্দ্রর হিসাব নিকাশ শেষ করে কেন্দ্র ত্যাগ করা। M. তথ্যকেন্দ্র পরিদর্শনকারী কিংবা সেবা গ্রহীতাদের তালিকা সংরক্ষণ: সেবা গ্রহীতাদের তালিকা সেবা গ্রহণকারী রেজিস্টারে লিখে রাখা হয়। N. তথ্যকেন্দ্রের নতুন কাজের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া: এলাকার চাহিদা গুলো একত্র করে অফিসের অন্যন্য কর্মকর্তাদের সাথে আলাপ আলোচনা করে নতুন নতুন কাজের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। O. তথ্যকেন্দ্রের আর্থিক হিসাব সংরক্ষণ: প্রশিক্ষণ সহ সকল সেবা গ্রহণকারীকে রশিদের মাধ্যমে লেনদেন হয়। এই রশিদ দেখে দৈনিক হিসাব সমূহ ক্যাশবই ও লেজারে স্থানান্তর করা হয়। এরপর এখান থেকে ব্যাংকে জমা দেয়া হয়। প্রথম ধাপ ব্যাতিত পরবর্তী সকল কার্যক্রম হিসাব রক্ষক করে থাকেন। P. তথ্যকেন্দ্রের কর্মীদের মূল্যায়ন: মাসিক কর্মপরিকল্পনা ও এর বাস্তবায়নের উপর ভিত্তি করে। Q. তথ্যকেন্দ্রের সাজসজ্জা: আমাদের অফিসে অনেকগুলো রুম থাকলেও টেলিসেন্টারের কাজে মূলত তিনটি রুমই ব্যবহৃত হয়ে থাকে। প্রথম ঢুকতেই বসার রুম ও তৎসংলগ্ন ওয়াশরুম। এর পাশের রুমটি অভ্যর্থনা, তথ্যসেবা ও আনুষঙ্গিক সেবার কাজে ব্যবহৃত হয়। এর পরবর্তী রুমটি প্রশিক্ষণের কাজে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

৬. টেলিসেন্টারের সেবা ও কার্যক্রম K. তথ্যকেন্দ্রের সেবার তালিকা সেবার নাম কাদের দেয়া হয় কখন দেয়া হয় কোনো ফি নেয়া হয় কি? হলে কিভাবে বভিন্ন বিষয়ে তথ্য প্রদান সকলের জন্য অফিস চলাকালীন মৌখিক তথ্য ফ্রি, তথ্য প্রিন্ট নিলে প্রতি পৃষ্ঠা ৫ টাকা কম্পিউটার প্রশিক্ষণ ছাত্রছাত্রী, বেকার যুবক, চাকুরীজীবী অফিস চলাকালীন প্রতি কোর্সের জন্য নির্ধারিত ভিন্ন পরিমাণ ফি- ৫০০-১২৪৫ টাকা ইন্টারনেট ব্রাউজিং ছাত্রছাত্রী ও অন্যান্য পেশাজীবি। অফিস চলাকালীন নেট ব্রাউজ প্রতি ঘন্টায় ২০ টাকা মেইল ছাত্রছাত্রী ও অন্যান্য পেশাজীবি। অফিস চলাকালীন প্রতি মেইল ১০ টাকা ইন্টারনেটে প্রকাশিত সকল পরীক্ষার ফলাফল ছাত্রছাত্রী ও চাকুরী প্রত্যাশী অফিস চলাকালীন মৌখিক ৫ টাকা ও প্রিন্ট ১০ টাকা ডিভি ফরম ছাত্রছাত্রী, যুবক, চাকুরিজীবি, সর্বসাধারণ অফিস চলাকালীন ডিভি ৫০ টাকা, কম্পোজ ছাত্রছাত্রী, যুবক, চাকুরিজীবি, সর্বসাধারণ অফিস চলাকালীন কম্পোজ ১৫টাকা ছবি তোলা ছাত্রছাত্রী, যুবক, চাকুরিজীবি, সর্বসাধারণ অফিস চলাকালীন ছবিতোলা ৪ কপি ২০টাকা

৭. টেলিসেন্টারের প্রতিবন্ধকতাসমূহ ও উত্তরণের উপায়

K. টেলিসেন্টার পরিচালনার প্রতিবন্ধকতা: এছাড়াও কয়েকটি সেবা, যেমন ওযন - উচ্চতা মাপা, ভিডিও প্রদর্শনী ইত্যাদি সেবার প্রতি জনসাধারণের আগ্রহ কম পরিলক্ষিত হয়। L. তথ্যকেন্দ্রের কোনো কারিগরী সমস্যা: স্থানীয় টেনিশিয়ান দিয়ে সারানো হয়। M. এসকল প্রতিবন্ধকতা দূর করতে যেসকল উদ্যোগ নেয়া যেতে পারে: ৩ মাস বা ৬ মাস পরপর ভাল প্রশিক্ষণ এর ব্যবস্থা করা।

৮. টেলিসেন্টারের সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা এবং আর্থিক আয়-ব্যয় K. তথ্যকেন্দ্রের সেবা গ্রহণকারী (মাসে): প্রতিমাসে ৫০০-৬০০ জন সেবা পেয়ে থাকে। L. তথ্যকেন্দ্রের অবস্থান সম্পর্কে এলাকার যতভাগ জনগণ জানে: টেলিসেন্টারের অবস্থান শতকরা ৮০ ভাগ লোক জানে M. এলাকার জনগণ যেভাবে এ কার্যক্রমে সহায়তা করছে: বিভিন্ন কার্যক্রমে অংশগ্রহনের মাধ্যমে এবং পরষ্পরের মধ্যে প্রচারের মাধ্যমে সহায়তা করে। N. তথ্যকেন্দ্র স্থাপনে আনুমানিক খরচ

খরচের খাত অংক কম্পিউটার ক্রয় ২০০,০০০ আসবাবপত্র ক্রয় ৫০,০০০ মডেম ক্রয় ১০,০০০ প্রিন্টার ৭,০০০ স্পিকার ও হেডফোন ক্রয় ২,০০০ ল্যান সংযোগ ৫,০০০ আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি ক্রয় ১০,০০০ বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ১০,০০০ বাড়ি ভাড়া অগ্রিম প্রদান ৩০,০০০


O. প্রাথমিক স্থাপনের খরচ কিভাবে জোগাড় হয়েছিল: ডেভেলপমেন্ট রিচার্স নেটওয়ার্ক -ডিনেট ও সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন। P. তথ্যকেন্দ্র স্থাপনের জন্য কোনো আর্থিক সহায়তা বা ঋণ গ্রহণ: না। Q. তথ্যকেন্দ্রের মাসে (গড়ে) খরচ

খরচের খাত অংক তথ্য কর্মীদের বেতন ১০,০০০-১২,০০০ বিদ্যূৎ বিল ২০০ ছবি সংক্রান্ত ২০০ ইন্টারনেট ৩৫০ প্রচার ৫০০ যাতায়াত ৫০০ মেরামত ৫০০ আপ্যায়ন ৫০০ আনুষঙ্গিক ৫০০

R. তথ্যকেন্দ্রের আয়ের খাত

আয়ের খাত আয়ের পরিমান (এক মাসে) তথ্যসেবা ৩৫০-৪০০ কম্পিউটার প্রশিক্ষণ ৮,০০০-৩০,০০০ ছবি তোলা ১,২০০-৩,৫০০ কম্পোজ ৬০০-১,৫০০ অন্যান্য ৫০০-১,০০০


৯. সাফল্যের কাহিনী তথ্য এবং জীবন কাহিনী আলোচনা করা

উপকারভোগীর নামঃ মহসীন হাওলাদার পারিবারের আর্থিক অবস্থা সুবিধাজনক নয়। ধরিত্রী পল্লীতথ্য কেন্দ্র হতে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নিয়ে তিনি বর্তমানে যশোরের চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদে গণ উন্নয়ন ফাউন্ডেশান - গউফ পরিচালিত পল্লীতথ্য ও ইউনিয়ন ইনফরমেশন সেন্টারের ম্যানেজার পদে কর্মরত আছেন। স্বল্পমূল্যে উক্ত কম্পিউটার কোর্স করার ফলে তিনি পল্লীতথ্যে চাকুরী পেয়েছেন। এত তার পড়ালেখা চালানোর পাশাপাশি পারিবারিক স্বচ্ছলতা ফিরে এসেছে। বর্তমানে তিনি বিএ পড়ছেন।