কর্মী বিনিময় কর্মসূচী/তথ্যকর্মী বিনিময় কর্মসূচী-পারস্পরিক শিখনের একটি চর্চা

উইকিবই থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বাংলাদেশ গত এক দশকেরও বেশী সময় ধরে টেলিসেন্টার কিংবা তথ্যকেন্দ্র কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত। ধরণের ভিন্নতা, ব্যবসায়িক মডেল, পরিচালনা পদ্ধতি, মালিকানা, স্থান ইত্যাদি বিষয়গুলো একটি কেন্দ্র থেকে অন্যটিকে অনবদ্য করে তুলেছে। বিভিন্ন গবেষণা ও অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে যে, তথ্যকেন্দ্রে কর্মরত তথ্যকর্মীর দক্ষতা ও ধারণার স্বচ্ছতা একটি তথ্যকেন্দ্রের সফলতার সবচেয়ে বড় নিয়ামক। তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার জনগণের আচরণ এবং তথ্যকেন্দ্রের কার্যক্রম সম্পর্কে তথ্যকর্মীর জ্ঞান তথ্যকেন্দ্র পরিচালনার কেন্দ্রবিন্দু। খুব সাধারণ কম্পিটার পরিচালনা থেকে শুরু করে ব্যাপক টেলিমেডিসিন সেবার মতো জটিল বিষয়গুলো একজন তথ্যকর্মীর মাধ্যমেই কাঙ্খিত জনগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছে। একজন তথ্যকর্মীকে এলাকার জনগণের তথ্য ও জ্ঞান চাহিদা পূরণসহ নানামূখী সেবা প্রদান করতে হয়। আর তাই তথ্যকর্মীর যোগ্যতা ও দক্ষতার উন্নয়ন তথ্যকেন্দ্র পরিচালনা প্রতিষ্ঠানের জন্য সবচেয়ে অগ্রাধিকার বিষয়।

বাংলাদেশে প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের তথ্যকেন্দ্র পরিচালনার নিজস্ব প্রক্রিয়া রয়েছে; রয়েছে নিজস্ব প্রশিক্ষণ কর্মসূচী। এসকল প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে তথ্য প্রযুক্তির পরিচিতি, তথ্যে প্রবেশাধিকার, ইন্টারনেট ও ইমেইল পরিচালনা, সামাজিক সচেতনতা, ব্যবসায়িক মডেল ইত্যাদি। কিন্তু বাস্তব প্রশিক্ষণ ক্ষেত্র হলো তথ্যকর্মীর কর্মএলাকা। কারন প্রতিটি এলাকার রয়েছে নিজস্ব সংস্কৃতি, চর্চা এবং নানা মাত্রিক তথ্যচাহিদা। বাংলাদেশের প্রতিটি এলাকার চরিত্রের ভিন্নতার সাথে খাঁপ খাইয়ে একটি সর্বজনগ্রাহ্য প্রশিক্ষণ পরিচালনা করা প্রায় অসম্ভব। আর তাই মূল প্রশিক্ষণের সাথে কাজ করতে করতে শেখার এক সংমিশ্রণ প্রয়োজন। বিভিন্ন তথ্যকেন্দ্রের তথ্যকর্মীর কর্মএলাকায় অর্জিত অভিজ্ঞতাকে একটি পারস্পরিক শিখন চর্চার মধ্যে নিয়ে আসারা লক্ষ্য নিয়েই বাংলাদেশ টেলিসেন্টার নেটওয়ার্ক ‘‘কর্মী বিনিময় কর্মসূচী” শুরু করে।

‘‘কর্মী বিনিময় কর্মসূচী”-র মূল উদ্দেশ্য হলো একদল তথ্যকর্মীকে স্বল্প সময়ের জন্য অন্য একটি তথ্যকেন্দ্রে পরিদর্শনের মাধ্যমে তথ্যকর্মীদের মধ্যে জ্ঞান ও অভিজ্ঞতার বিনিময়ের একটি চর্চা গড়ে তোলা, যার ফলে তারা: ১. একে অপরের কাছে থকে তথ্যকেন্দ্রের সেবা ও পরিচালনা পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে পারবে; ২. তথ্যকেন্দ্র ব্যবস্থাপনায় কোন বিষয়গুলো কাজ করে এবং কোনগুলো করে না তা বুঝতে পারবে; ৩. এলাকার জনগণের নানামূখী চাহিদা পূরণে তথ্যকেন্দ্রের সামর্থ্য সম্পর্কে জানতে ও বুঝতে পারবে; এবং ৪. তথ্যকর্মীদের মধ্যে আন্ত:সম্পর্ক স্থাপন ও উন্নয়ন ঘটবে।

এরকম একটি উদ্দেশ্য সামনে নিয়ে বাংলাদেশ টেলিসেন্টার নেটওয়ার্ক ২০০৯ সালে ‘‘কর্মী বিনিময় কর্মসূচী” চালু করে। শুরুতে বাংলাদেশ টেলিসেন্টার নেটওয়ার্ক-এর সদস্যদের সাথে এ সংক্রান্ত একটি মতবিনিময়ের আয়োজন করা হয় এবং কর্মী মনোনয়নের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। নেটওয়ার্কের সদস্যদের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত হয় যে, একটি দল একটি তথ্যকেন্দ্রে পাঁচ (৫) দিন অবস্থান করবে। এরমধ্যে ভিন্ন এলাকার কয়েকজন কর্মী অতিথি হিসেবে তথ্যকেন্দ্র পরিদর্শন করবেন এবং পরিদর্শনকারী তথ্যকেন্দ্রের একজন যাবতীয় কাজ তদারকির দায়িত্বে থাকবেন। পরিদর্শনকারী তথ্যকর্মীরা একটি ডকুমেন্টেশন বইয়ের মাধ্যমে এবং অনলাইন ব্লগের মাধ্যমে তাদের অভিজ্ঞতা লিপিবদ্ধ করবে। বাংলাদেশ টেলিসেন্টার নেটওয়ার্ক এ কার্যক্রমের অভিজ্ঞতা নথিকরণের জন্য একটি নির্দেশিকা প্রস্তুত করবে।

প্রাথমিকভাবে একটি পরিদর্শন নির্দেশিকা প্রস্তুত করা হয়, যার মাধ্যমে নিম্নোক্ত বিষয়গুলোর দিকে আলোকপাত করা হয়:

১. টেলিসেন্টার পরিচিতি
ক. টেলিসেন্টারের শুরুর তারিখ
খ. যেভাবে শুরু হয়েছিল
গ. প্রাথমিকভাবে যারা শুরু করেছিল
ঘ. এই স্থানে টেলিসেন্টার নির্বাচনের কারন
ঙ. তথ্যকেন্দ্রে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি
চ. তথ্যকেন্দ্রের ইন্টারনেট সংযোগ
ছ. তথ্যকেন্দ্রে ব্যবহৃত অফলাইন তথ্য ও সিডি
২. টেলিসেন্টার কর্মী পরিচিতি
ক. তথ্যকেন্দ্রে কর্মরত কর্মীদের তালিকা
খ. কর্মীদের নির্বাচন প্রক্রিয়া
গ. তথ্যকর্মীর প্রতিদিনের কাজ
ঘ. সামাজিক প্রতিকূলতা
ঙ. তথ্যকর্মীর ওয়েবসাইট ব্যবহার
চ. তথ্যকর্মীর ব্লগ কিংবা সামাজিক ওয়েবসাইটে অবস্থান
ছ. উল্ল্যেখযোগ্য ঘটনা যা তথ্যকর্মীকে কাজ করতে উৎসাহিত করে
জ. তথ্যকর্মীর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা
ঝ. তথ্যকর্মীর ব্যক্তিগত জীবন
৩. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকা সম্পর্কে
ক. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার ভৌগলিক অবস্থান
খ. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার জনগণের পেশা
গ. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার অবকাঠামো
ঘ. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান
ঙ. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকায় অন্যান্য তথ্যপ্রযুক্তি ভিত্তিক উদ্যোগ
চ. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার গুরুত্বপূর্ণ কিংবা উল্ল্যেখযোগ্য স্থাপনা বা ঘটনা
৪. তথ্যকেন্দ্রের স্থানীয় জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার কৌশল
ক. এলাকার জনগণকে তথ্যকেন্দ্রের সেবার সাথে সম্পৃক্ত করার জন্য উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচী
খ. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার এনজিও, সরকারী প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা
গ. স্থানীয় সরকার এবং অন্যান্য সরকারী প্রতিষ্ঠান এর সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা
ঘ. এলাকার ক্ষুদ্র ব্যসায়ীদের সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা
ঙ. এলাকার নারীদের সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা
চ. এলাকার শিশু ও কিশোরদের সাথে তথ্যকেন্দ্রের সম্পৃক্ততা
৫. টেলিসেন্টার ব্যবস্থাপনা
ক. দৈনিক কর্মসময়
খ. কর্মীদের দায়িত্ব বন্টন
গ. কর্মীর দৈনিক কাজের তালিকা
ঘ. তথ্যকেন্দ্র পরিদর্শনকারী কিংবা সেবা গ্রহীতাদের তালিকা সংরক্ষণ
ঙ. তথ্যকেন্দ্রের নতুন কাজের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া
চ. তথ্যকেন্দ্রের আর্থিক হিসাব সংরক্ষণ
ছ. তথ্যকেন্দ্রের কর্মীদের মূল্যায়ন
জ. তথ্যকেন্দ্রের সাজসজ্জা
৬. তথ্যকেন্দ্রের সেবা ও কার্যক্রম
ক. তথ্যকেন্দ্রের সেবার তালিকা
খ. তথ্যকেন্দ্রের সেবাগুলো গ্রহণ করে কিভাবে জনগণ লাভবান হয়
গ. তথ্যকেন্দ্র পরিচালিত এলাকার নতুন কোনো তথ্য বা সেবার চাহিদা
৭. তথ্যকেন্দ্রের প্রতিবন্ধকতাসমূহ ও উত্তরণের উপায়
ক. তথ্যকেন্দ্র পরিচালনার প্রতিবন্ধকতাগুলো
খ. তথ্যকেন্দ্রের কোনো কারিগরী সমস্য
গ. তথ্যকেন্দ্র কর্মীদের দক্ষতা সংক্রান্ত প্রতিবন্ধকতা
ঘ. এসকল প্রতিবন্ধকতা দূর করতে যেসকল উদ্যোগ নেয়া যেতে পারে
৮. তথ্যকেন্দ্রের সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা এবং আর্থিক আয়-ব্যয়
ক. তথ্যকেন্দ্রের সেবা গ্রহণকারী (মাসে)
খ. তথ্যকেন্দ্রের অবস্থান সম্পর্কে এলাকার যতভাগ জনগণ জানে
গ. এলাকার জনগণ যেভাবে এ কার্যক্রমে সহায়তা করছে
ঘ. তথ্যকেন্দ্র স্থাপনে আনুমানিক খরচ
ঙ. প্রাথমিক স্থাপনের খরচ কিভাবে জোগাড় হয়েছিল?
চ. তথ্যকেন্দ্র স্থাপনের জন্য কোনো আর্থিক সহায়তা বা ঋণ গ্রহণ
ছ. তথ্যকেন্দ্রের মাসে (গড়ে) খরচ
জ. তথ্যকেন্দ্রের আয়ের খাত
৯. সাফল্যের কাহিনী তথ্য এবং জীবন কাহিনী আলোচনা করা

পাশপাশি তৈরী করা হয় একটি অনলাইন কাঠামো যেখানে পরিদর্শনকারী তথ্যকর্মীরা তাদের দৈনন্দিন কার্যক্রমগুলো তথ্যায়ন করতে পারবে। এ অনলাইন কাঠামোই পরবর্তীতের তাদের কার্যক্রম বিষয়ে মতবিনিময়ে ব্যবহৃত হয়। অনলাইন ঠিকানা হলো: http://telecentrebd.ning.com/

এ কার্যক্রমে অংশগ্রহণের জন্য ২৩টি প্রতিষ্ঠান থেকে ৫৩ জন তথ্যকর্মীর মনোনয়ন পাওয়া যায় এবং ২২ টি তথ্যকেন্দ্রে পরিদর্শনের জন্য মনোনীত হয়। পরিদর্শনের জন্য মনোনীত তথ্যকেন্দ্র গুলো হলো:

১. আমাদের গ্রাম জ্ঞান কেন্দ্র, রামপাল, বাগেরহাট
২. আরবান পল্লীতথ্য কেন্দ্র, পূর্বধলা, নেত্রকোনা
৩. আরবপুর শতদল কমিউনিটি রিসোর্স সেন্টার, আরবপুর, যশোর
৪. আলোকিত গ্রাম, কাহালু, বগুড়া
৫. ইউসেপ এ.কে.খান টেকনিক্যাল স্কুল সিএলপি সেন্টার, কালুরঘাট, চট্টগ্রাম
৬. ইসলামাবাদ বালিকা এতিমখানা সিএলপি সেন্টার, ঝাউডাঙ্গা, চট্টগ্রাম
৭. ইয়থ্ কমিউনিটি মাল্টিমিডিয়া সেন্টার, সীতাকুন্ড, চট্টগ্রাম
৮. উদয়ন পল্লীতথ্য কেন্দ্র, সাঘাটা, গাইবান্ধা
৯. কাড়াপাড়া নারী কল্যাণ সংস্থা গ্রামীণ তথ্য কেন্দ্র, কাড়াপাড়া, বাগেরহাট
১০. গউফ পল্লী তথ্যকেন্দ্র, চাঁচড়া, যশোর
১১. ঘাট তথ্যকেন্দ্র, বিরামপুর, দিনাজপুর
১২. ঢেউ পল্লীতথ্য কেন্দ্র, বাসাইল, টাঙ্গাইল
১৩. দিগন্তের ডাক পল্লীতথ্য কেন্দ্র, সূবর্ণচর, নোয়াখালী
১৪. ধরিত্রী পল্লী তথ্য কেন্দ্র, মোংলা, বাগেরহাট
১৫. মা টেলিকমিউনিকেশন, চৌগাছা, যশোর
১৬. রুরাল নলেজ সেন্টার- আলেকদিয়া, আলেকদিয়া, চট্টগ্রাম
১৭. রুরাল নলেজ সেন্টার- সাহেরখালী, মিরসরাই, চট্টগ্রাম
১৮. ব্র্যাক মাদলা গণকেন্দ্র পাঠাগার, ফুলতলা, বগুড়া
১৯. বাগমনিরাম এস. কে. সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সিএলপি সেন্টার, দামপাড়া, চট্টগ্রাম
২০. বাতিঘর-ই-তথ্যকেন্দ্র, সিংগাইর, মানিকগঞ্জ
২১. সুন্দরবন আইটি একসেস সেন্টার, হাজী মহসিন রোড, খুলনা
২২. সামছউদ্দীন নাহার পল্লীতথ্য কেন্দ্র, বৈটপুর, বাগেরহাট

মনোনীত তথ্যকেদ্র ও তথ্যকর্মীর বিবরণ হলো:

ক্রমিক প্রতিষ্ঠানের নাম অংশগ্রহণকারী তথ্যকর্মী নারী পুরুষ
আমাদের গ্রাম
আলোকিত গ্রাম, কাহালু
পার্টিসিপেটরি রিসার্স এন্ড একশন নেটওয়ার্ক (প্রান)
ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল এ্যাকশন (ইপসা)
উদয়ন সাবলম্বী সংস্থা
কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট এ্যাসোসিয়েশন (সিডিএ)
কালিকাপুর দরিদ্র কল্যাণ সংস্থা পল্লীতথ্য কেন্দ্র
কাড়াপাড়া নারী কল্যাণ সংস্থা গ্রামীণ তথ্য কেন্দ্রু
গউফ পল্লী তথ্যকেন্দ্র
১০ ডিজিটাল ইকুয়্যালিটি নেটওয়ার্ক (ডেন)
১১ পি্এম পল্লীতথ্য কেন্দ্র
১২ ঊষা পল্লীতথ্য কেন্দ
১৩ নাবিক পল্লীতথ্য কেন্দ্র
১৪ প্রিজম পল্লীতথ্য কেন্দ্র
১৫ বাগমনিরাম এস, কে, সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
১৬ নগরকান্দা ডিগ্রী কলেজ
১৭ ডি.নেট
১৮ ঢাকা আহসানিয়া মিশন
১৯ মানবিক উন্নয়ন সহায়ক কার্যক্রম
২০ দিগন্তের ডাক
২১ পার্টিসিপেটরী এডভান্তমেন্ট সোশ্যাল সার্ভিস (পাস)
২২ ব্র্যাক
২৩ বিআইআইডি
২৪ সামছউদ্দীন নাহার ট্রাস্ট
২৫ সুন্দরবন আইটি একসেস সেন্টার
২৬ হাঙ্গার ফ্রি ওয়ার্ল্ড
২৭ ধরিত্রী সমাজ কল্যান সংস্থা
২8 একটিভিটি ফর রিফরমেশন অব বেসিক নীডস (আরবান)


তথ্যকেন্দ্রের অঞ্চলভিত্তিক তিটি দলে ভাগ করে এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়। প্রথম দলে অক্টোবর’ ০৯ এর ০৭ তারিখে মোট ২৪ জন তথ্যকর্মী যশোর জেলায় এক হয়। সেখানে দিনব্যাপী পরিচিতি ও আলোচনার পরে তথ্যকর্মীরা তাদের জন্য নির্ধারিত তথ্যকেন্দ্রের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। একইভাবে দ্বিতীয় দলে অক্টোবর’ ০৯ এর ২৬ তারিখে ১৬ জন তথ্যকর্মী চট্টগ্রামে একত্রিত হন এবং তৃতীয় দলে নভেম্বর’ ০৯ এর ০৬ তারিখে ১৬ জন তথ্যকর্মী বগুড়াতে একত্রিত হয়ে পরিদর্শনে বেরিয়ে পড়েন।

পরিশেষে তথ্যকর্মীরা বাংলাদেশ টেলিসেন্টার নেটওয়ার্কের কার্যালয়ে তাদের প্রতিবেদন জমা দেন এবং সম্পাদনার কাজ শুরু হয়। এভাবেই বাংলাদেমে প্রথমবারের মতো তথ্যকর্মীর নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গির আলোকে এ কার্যক্রম সফলভাবে পরিচালিত হয়।

টেলিসেন্টার পরিচিতি

টেলিসেন্টারের শুরুর সময়

১৯৯৭ ২০০১ ২০০৩ ২০০৪ ২০০৫ ২০০৬ ২০০৭ ২০০৮ ২০০৯
ব্র্যাক মাদলা গণকেন্দ্র পাঠাগার আমাদের গ্রাম জ্ঞান কেন্দ্র আরবপুর শতদল সিআরসি ইয়ুথ কমিউনিটি মাল্টিমিডিয়া সেন্টার দিগন্তের ডাক পল্লীতথ্য কেন্দ্র মা টেলিকমিউনিকেশন সিআইসি উদয়ন পল্লীতথ্য কেন্দ্র বাতিঘর-ই-তথ্যকেন্দ্র বাগমনিরাম এস. কে. সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সিএলপি
ধরিত্রী পল্লীতথ্য তথ্য কেন্দ্র আলোকিত গ্রাম, কাহালু আরবান পল্লীতথ্য কেন্দ্র ঘাট তথ্যকেন্দ্র ইসলামাবাদ বালিকা এতিমখানা সিএলপি
ঢেউ পল্লীতথ্য কেন্দ্র রুরাল কলেজ সেন্টার, আলেকদিয়া ইউসেপ এ.কে.খান টেকনিক্যাল স্কুল সিএলপি
রুরাল কলেজ সেন্টার, সাহেরখালী সুন্দরবন আইটি এক্সেস সেন্টার কাড়াপাড়া নারী কল্যাণ সংস্থা গ্রামীণ তথ্য কেন্দ্র
গউফ ইউনিয়ন ইনফরমেশন সেন্টার শামসুদ্দিন নাহার ট্রাস্ট পল্লীতথ্য কেন্দ্র

টেলিসেন্টারের যন্ত্রপাতি

তথ্যকেন্দ্রের নাম কম্পিউটার প্রিন্টার ডিজিটাল ক্যামেরা স্ক্যানার আইপি.এস/ ইউপিএস ইন্টারনেট মডেম ওয়েব ক্যাম লেমিনেটিং মেশিন মোবাইল ফোন টেলিভিশন মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর ভিডিও ক্যামেরা ফটোকপি মেশিন ইনফো কিয়স্ক
আমাদের গ্রাম জ্ঞান কেন্দ্র
আরবান পল্লীতথ্য কেন্দ্র
আরবপুর শতদল কমিউনিটি রিসোর্স সেন্টার
আলোকিত গ্রাম, কাহালু
ইউসেপ এ.কে.খান টেকনিক্যাল স্কুল সিএলসি ১১
ইসলামাবাদ বালিকা এতিমখানা সিএলসি
ইয়থ্ কমিউনিটি মাল্টিমিডিয়া সেন্টার
উদযন পল্লীতথ্য কেন্দ্র
কাড়াপাড়া নারী কল্যাণ সংস্থা গ্রামীণ তথ্য কেন্দ্র
গউফ ইউনিয়ন তথ্য কেন্দ্র
ঘাট তথ্যকেন্দ্র
ঢেউ পল্লীতথ্য কেন্দ্র
দিগন্তের ডাক পল্লীতথ্য কেন্দ্র
ধরিত্রী পল্লীতথ্য কেন্দ্র ১০
মা টেলিকমিউনিকেশন
রুরাল নলেজ সেন্টার- আলেকদিয়া
রুরাল নলেজ সেন্টার- সাহেরখালী
ব্র্যাক মাদলা গণকেন্দ্র পাঠাগার
এস. কে. সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সিএলসি
বাতিঘর-ই-তথ্যকেন্দ্র
সুন্দরবন আইটি একসেস সেন্টার ১৩
সামছউদ্দীন নাহার পল্লীতথ্য কেন্দ্র ১৩


টেলিসেন্টার অফলাইন তথ্য ও সিডি


তথ্যকেন্দ্রে কর্মীর সংখ্যা